ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়: ক্রেতাদের জন্য একটি নির্দেশিকা

ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়: বাংলাদেশের ক্রেতাদের জন্য একটি নির্দেশিকা

ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়
ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়

 

একটি ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনা আপনার অর্থ সাশ্রয় করতে পারে, তবে প্রতারণা এড়াতে বা আপনার চাহিদা পূরণ করবে না এমন একটি ডিভাইস কেনা এড়াতে আপনার হোমওয়ার্ক করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।  বাংলাদেশে একটি ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনার আগে এখানে 15টি কাজ করতে হবে:

 
1. ল্যাপটপ নিয়ে গবেষণা করুন: যেকোনও ব্যবহৃত ল্যাপটপ কেনার আগে মডেল, এর বৈশিষ্ট্য এবং এর দামের পরিসর নিয়ে কিছু গবেষণা করুন।  এটি আপনাকে একটি জ্ঞাত সিদ্ধান্ত নিতে এবং আপনার বিকল্পগুলিকে সংকুচিত করতে সহায়তা করবে।
 
2. একটি বাজেট সেট করুন: আপনি একটি ব্যবহৃত ল্যাপটপে কতটা ব্যয় করতে ইচ্ছুক তা নির্ধারণ করুন এবং আপনার বাজেটের সাথে লেগে থাকুন।  এটি আপনাকে অতিরিক্ত খরচ করা এবং পরে আপনার ক্রয়ের জন্য অনুশোচনা এড়াতে সহায়তা করবে।
 
3. আপনার প্রয়োজনগুলি নির্ধারণ করুন: আপনি ল্যাপটপটি কীসের জন্য ব্যবহার করবেন এবং কোন বৈশিষ্ট্যগুলি আপনার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, যেমন প্রসেসরের গতি, RAM, স্টোরেজ ক্ষমতা বা অপারেটিং সিস্টেম বিবেচনা করুন৷
 
4. অপারেটিং সিস্টেম পরীক্ষা করুন: আপনি কোন অপারেটিং সিস্টেম পছন্দ করবেন তা নির্ধারণ করুন, এটি উইন্ডোজ, ম্যাকোস বা লিনাক্স।  প্রতিটিরই তার সুবিধা এবং অসুবিধা রয়েছে, তাই আপনার প্রয়োজন এবং পছন্দ অনুসারে একটি বেছে নিন।
 
5. ব্র্যান্ডের খ্যাতি পরীক্ষা করুন: আপনি যে ব্র্যান্ডে আগ্রহী তার খ্যাতি বিবেচনা করুন এবং তাদের গ্রাহকের পর্যালোচনা, রেটিং এবং বিক্রয়োত্তর পরিষেবা পরীক্ষা করুন।  এটি আপনাকে ব্র্যান্ডের নির্ভরযোগ্যতা এবং গুণমান সম্পর্কে ধারণা দেবে।
 
6. প্রসেসর পরীক্ষা করুন: একটি দ্রুত প্রসেসর সহ একটি ল্যাপটপ সন্ধান করুন, বিশেষ করে যদি আপনি গেমিং বা গ্রাফিক ডিজাইনে আগ্রহী হন৷  ইন্টেল বা এএমডি প্রসেসর বিবেচনা করুন এবং আপনার প্রয়োজন এবং বাজেট অনুসারে একটি বেছে নিন।
 
7. RAM চেক করুন: আপনার প্রয়োজনের জন্য পর্যাপ্ত RAM সহ একটি ল্যাপটপ সন্ধান করুন, তা 8GB, 16GB বা আরও বেশি।  আপনার ল্যাপটপে আপনার ব্যবহার এবং আপনি যে অ্যাপ্লিকেশনগুলি চালাবেন তা বিবেচনা করুন৷
 
8. স্টোরেজ ক্ষমতা পরীক্ষা করুন: আপনার প্রয়োজনের জন্য পর্যাপ্ত স্টোরেজ ক্ষমতা সহ একটি ল্যাপটপ সন্ধান করুন, তা 256GB, 512GB বা আরও বেশি।  ল্যাপটপে সলিড-স্টেট ড্রাইভ (SSD) বা হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ (HDD) আছে কিনা তা বিবেচনা করুন।
 
9. প্রদর্শনের গুণমান পরীক্ষা করুন: ল্যাপটপের প্রদর্শনের আকার, রেজোলিউশন এবং প্রকার বিবেচনা করুন।  একটি উচ্চ-মানের ডিসপ্লে সহ একটি ল্যাপটপ সন্ধান করুন যা চোখে সহজ।
 
10. ব্যাটারি লাইফ পরীক্ষা করুন: দীর্ঘ ব্যাটারি লাইফ সহ একটি ল্যাপটপের সন্ধান করুন, বিশেষ করে যদি আপনি এটি চলতে চলতে ব্যবহার করেন৷  ব্যাটারির ক্ষমতা পরীক্ষা করুন এবং এটি দ্রুত চার্জিং সমর্থন করে কিনা।
 
11. শারীরিক ক্ষতির জন্য পরীক্ষা করুন: ফাটল, ডেন্ট বা স্ক্র্যাচের মতো শারীরিক ক্ষতির জন্য ল্যাপটপটি পরীক্ষা করুন।  এগুলি দুর্বল হ্যান্ডলিং বা রক্ষণাবেক্ষণ নির্দেশ করতে পারে।
 
12. তরল ক্ষতির জন্য পরীক্ষা করুন: তরল ক্ষতির কোনো লক্ষণ যেমন জলছাপ, বিবর্ণতা বা ক্ষয় আছে কিনা তা পরীক্ষা করুন।  তরল ক্ষতির কারণে অভ্যন্তরীণ উপাদানগুলি ব্যর্থ হতে পারে এবং ল্যাপটপের জীবনকাল হ্রাস করতে পারে।
 
13. সফ্টওয়্যার সমস্যাগুলি পরীক্ষা করুন: ডায়াগনস্টিক চালিয়ে ল্যাপটপের সফ্টওয়্যার পরীক্ষা করুন এবং কোনও ত্রুটি বা ত্রুটি আছে কিনা তা পরীক্ষা করুন৷  ম্যালওয়্যার বা ভাইরাসগুলি পরীক্ষা করুন যা আপনার নিরাপত্তা এবং ডেটার সাথে আপস করতে পারে৷
 
14. ল্যাপটপ পরীক্ষা করুন: কেনার আগে ল্যাপটপটি কিছুক্ষণ ব্যবহার করে এবং বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন চালিয়ে ভালোভাবে পরীক্ষা করুন।  এটি আপনাকে ল্যাপটপের পারফরম্যান্স এবং এটি আপনার চাহিদা পূরণ করে কিনা তা সম্পর্কে একটি অনুভূতি দেবে।
 
15. ওয়ারেন্টি চেক করুন: ত্রুটি, ত্রুটি বা ক্ষতি কভার করে এমন একটি ওয়ারেন্টি সহ একটি ল্যাপটপ সন্ধান করুন৷  ওয়ারেন্টির সময়কাল এবং এটি কী কভার করে তা পরীক্ষা করুন।

Leave a Comment


The reCAPTCHA verification period has expired. Please reload the page.