লেবেলিং তত্ত্ব কী? (Labelling Therory)

লেবেলিং তত্ত্ব,Labelling TheroryHoward Becker ১৯৬০ সালে লেবেলিং তত্ত্ব বা ‘Labelling Therory’ উপস্থাপন করেন। এ লেবেলিং তত্ত্বাটি মূলত একজন অপরাধী কীভাবে অপরাধী হয় তা নিয়ে দৃশ্যপাত করে না বরং সমাজ তাকে কীভাবে বিচ্যুত বা অপরাধী হিসেবে আখ্যা দেয় তা নিয়ে আলোচনা করে। কিছু মানুষ যারা অনেক নেশা করে সমাজ তাদেরকে পানাসক্ত হিসেবে আখ্যা দেয়। আবার একই নেশায় আসক্তদেরকে নেশাসক্ত হিসেবে বিবেচনা করা হয়। 

অন্যদিকে কারো আচরণের ক্ষেত্রে ভিন্নতা পরিলক্ষিত হলে তাদের চিকিৎসা করা হয় আবার একই ক্ষেত্রে একই ধরনের আচরণের জন্যে অন্যকে অপরাধী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তাই এ-তত্ত্ব অনুসারে বিচ্যুতিকে সমাজ কীভাবে দেখছে সে-হিসেবে বিচার করা হয়, অপরাধীকে ব্যক্তি হিসেবে নয়। ‘According to his theory what is important in the study of deviance is the social audience, not the individual person.’। 

 

ব্যক্তি কীভাবে কাজ করল সেটি গুরুত্বপূর্ণ নয় বরং সামাজিক আইন ও অনুমোদনের প্রেক্ষিতে তার কাজের সামাজিক প্রতিক্রিয়া কী তা গুরুত্বপূর্ণ। Erikson বলেন, একজন অপরাধী ও নিরপরাধ ব্যক্তির মধ্যে পার্থক্য তার বৈশিষ্ট্যগত নয়, বরং উভয়ের প্রতি সমাজ কর্তৃক প্রদত্ত বৈশিষ্ট্যই পার্থক্য সৃষ্টি করে।

 

 Becker-এর মতে অপরাধ ব্যক্তির কাজের মানগত দিক নয় বরং অপরাধী হিসেবে অন্যের দ্বারা প্রদত্ত আইন ও অনুমোদনের প্রয়োগের ফলাফল। তাই অপরাধী হচ্ছে সে-ই যার উপর অপরাধী আখ্যা সফলভাবে প্রয়োগ করা যায় এবং অপরাধমূলক আচরণকেও মানুষ এভাবেই আখ্যায়িত করে।

অভীক্ষা পরিচালনা-১

Reid আমেরিকায় একটি পরীক্ষা চালান। এতে আটজন সুস্থ বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক অবস্থায় অবস্থানকারী ব্যক্তিদের মিথ্যা মানসিক রোগী বানিয়ে দেশের বিভিন্ন মনোচিকিৎসা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই একই ধরনের জীবন- ইতিহাস তুলে ধরা হয়। কেবল একজন ব্যতীত সবাইকে সিজোফ্রেনিক রোগী হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। যদি কাউকে সুস্থ বলা হয় তবে তাদের সাথে হাসপাতালের কর্মীরা। সুস্থভাবেই আচরণ করবে। 

তাই এ-উদাহরণে এটি স্পষ্ট যে অন্যরা যেভাবে ব্যক্তিকে আখ্যায়িত করেছে সবাই তাদের সাথে সে-ধরনের প্রতিক্রিয়াই করেছে। অপরাধীদের ক্ষেত্রেও একই ব্যাপার ঘটে। সমাজ কিছু মানুষকে অপরাধী হিসেবে আখ্যা দেয় আবার কাউকে দেয় না। যেমন নীচু শ্রেণির কোনো ছেলে যদি গাড়ি চুরি করে তবে তাকে ‘চোর’ আখ্যা দেয়া হয়। কিন্তু উঁচু শ্রেণির কোনো ছেলে যদি একই কাজ করে তবে তাকে ‘দুরন্ত’ বা ‘mischievous pleasure seeker’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

অভীক্ষা পরিচালনা-২

১৯৬২ সালে আমেরিকার Richard Schawartz এবং Jerome Sholnick এক গবেষণা করেছেন। এতে একজন অপরাধীকে একশতজন নিয়োগকর্তার নিকট নিয়ে যাওয়া হয়। তাদের সবার কাছে ঐ ব্যক্তিকে বিভিন্নভাবে উপস্থাপন করা হয়। যেমন,

১)সে অপরাধী ও শাস্তি ভোগ করেছে।

২)সে অপরাধী ছিল না কিন্তু বেকসুর খালাস পেয়েছে।

৩) সে অপরাধী কিন্তু বেকসুর খালাস পেয়েছে।

৪) সে অপরাধী ছিল না কিন্তু সাজাপ্রাপ্ত হয়েছে।

কিন্তু দেখা গেছে কোনো নিয়োগকারীই অপরাধী ব্যক্তিকে চাকরি প্রদান করেনি। এ- কারণেই লেবেলিং তত্ত্বটি কে বা কারা আখ্যায়িত করছে তাদের উপর দৃষ্টি দেয়, অর্থাৎ যেসব ব্যক্তি নিয়মকানুন বা আইন তৈরি-প্রক্রিয়া ও বাস্তবায়নের সাথে জড়িত তাদের উপর গুরুত্ব দেয়।

Becker-এর মত অনুসারে আখ্যায়িতকরণ বিষয়টি নির্ভর করে।

১)কোন সময় অপরাধটি সম্পাদন করা হয়েছে। 

২)কে অপরাধ করেছে এবং কে তার শিকার হয়েছে এবং 

৩)অপরাধ বা কাজের ফলাফল-এ তিনটি দিকের উপর। 

 

এভাবে একটি কাজ বিচ্যুত কিংবা অপরাধ তা নির্ভর করে কাজের প্রকৃতি ও মানুষ সে- সম্পর্কে কী প্রতিক্রিয়া করছে তার উপর। Becker বলেন, আইন ভঙ্গকারী আচরণ ও বিচ্যুত আচরণের মধ্যে পার্থক্য নির্দেশ করা উচিত। অপরাধ বা বিচ্যুতি শুধুই আচরণের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয় বরং তা ব্যক্তির মিথস্ক্রিয়া ও এর সাথে প্রতিক্রিয়ারত অন্যান্য ব্যক্তিও জড়িত।

 Becker আরো বলেন, কিছু নির্দিষ্ট ধরনের ব্যক্তিকে অন্যান্যদের চেয়ে বেশি অপরাধী হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়, যেমন, যে দলের রাজনৈতিক ক্ষমতা থাকে না তারা আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে চাপ প্রয়োগ করতে পারে না বা যে দলের রাজনৈতিক ক্ষমতা বা সামাজিক মর্যাদা রয়েছে তারা ক্ষমতা খাটাতে পারে।ব্যক্তিকে এভাবে আখ্যায়িত করলে তার উপর কী প্রভাব পড়ে? প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ব্যক্তির

আচরণের উপর প্রশ্ন তুললে বা ভিন্নভাবে আখ্যায়িত করলে তা পুনরায় ব্যক্তিকে অপরাধমূলক আচরণের দিকে ধাবিত করে এবং তা তাদের পক্ষে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে বাধার সৃষ্টি করে। আবার Wheeler এবং Cottrell বলেন, ব্যক্তি যদি কোনো ধরনের প্রাতিষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া না-পায় তবে ক্রমাগতই তার বিচ্যুত আচরণ চালিয়ে যাবে।

আরো পড়ুন:অপরাধ ও বিচ্যুতির মধ্যে পার্থক্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *